বিজনেস২৪বিডি ডেস্ক »

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বেড়েই চলছে। এ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ইতিমধ্যে বিশ্বের অনেক দেশ হজে অংশগ্রহণ করবে না বলে ঘোষণা দিয়েছে। এসব দেশের মধ্যে ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর, ব্রুনাই, থাইল্যান্ড রয়েছে। সর্বশেষ মালয়েশিয়াও এবার হজে অংশগ্রহণ করবে না বলে জানিয়েছে।

থাইল্যান্ড
করোনভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে থাইল্যান্ডের মুসলমানদের জন্য এ বছর হজ স্থগিত করা হয়েছে। থাইল্যান্ডে প্রতি বছর হজের কাজ সে দেশের ধর্ম মন্ত্রণালয় করে। ধর্ম মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এ বছর হজের জন্য মোট ৮ হাজার মুসলমান নিজেদের নাম নিবন্ধন করেছিলেন।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে ৫ হাজার ৭০০ জন মুসলমান পরবর্তী বছর হজ পালনের জন্য সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন। এর মধ্যে এক হাজার জন হজযাত্র বাতিল করেছে।

এ বছর যদি হজ অনুষ্ঠিত হয় তবে হজের জন্য নাম নিবন্ধনকৃত মোট ৮ হাজার জনের মধ্যে মাত্র ১৩০০ জন হজে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছেন। থাইল্যান্ড থেকে মাত্র ১৩০০ জন হাজি ওহীর দেশে যাবেন। হজযাত্রীদের অবশ্যই সরকার কর্তৃক নির্ধারিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

ইন্দোনেশিয়া
গত সপ্তাহে ইন্দোনেশিয়া এ বছর নিজ দেশের নাগরিকদের হজে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। এতে ইন্দোনেশিয়ার ২ লাখ ২১ হাজার মানুষ এবার হজে যাবে না ।

মালয়েশিয়া
করোনার সংক্রমণের আশঙ্কা ও চিকিৎসায় টিকা না থাকার কারণে মালয়েশিয়ার নাগরিকদের এ বছর হজে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিশ্চিত করেছেন দেশটির ধর্মমন্ত্রী জুলকিফলি মোহাম্মদ আল-বাকরি। তিনি বলেন, আমি আশা করি হজে যেতে আগ্রহীরা ধৈর্য ধারণ করবেন ও সরকারের এ সিদ্ধান্ত মেনে নেবেন।

পৃথক এক বিবৃতিতে দেশটির তাবুং হজ বোর্ড জানিয়েছে, এই সিদ্ধান্তের ফলে এ বছরের জন্য নির্বাচিত ৩১ হাজার ৬০০ মানুষ হজে যাবেন না।

ব্রুনাই ও সিঙ্গাপুর
মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়ার মতো একই রকম সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্রুনাই এবং সিঙ্গাপুর। ব্রুনেই সরকারের এ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত বর্নিও বুলেটিন পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, সৌদি সরকার কোনও সিদ্ধান্ত নিতে না পারায় ব্রুনাই হজযাত্রীদের আগে নিবন্ধিত হওয়া সত্ত্বেও আসন্ন হজের প্রস্তুতি না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এছাড়াও সৌদি সরকার হজের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাতে না পারলে এবং মহামারি করোনায় যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করতে না পারলে আফ্রিকার দেশ নাইজেরিয়াসহ অনেক দেশের হজে অংশগ্রহণ প্রায় অনিশ্চিত।

সৌদি আরব
এদিকে প্রথমবারের মতো পবিত্র হজ স্থগিত করার সিদ্ধান্তের বিষয়ে পর্যালোচনা করছে সৌদি আরব। ফের করোনার প্রাদুর্ভাব বৃদ্ধিতে সৌদি সরকার আসন্ন মৌসুমে হজ স্থগিতের দিকেই হাঁটতে পারে বলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে দেশটির একজন সরকারি কর্মকর্তা জানিয়েছেন। শুক্রবার প্রভাবশালী গণমাধ্যম আল জাজিরা আরবি ব্রিটিশ পত্রিকা ফাইন্যান্সিয়াল টাইমসের দাবির ভিত্তিতে এই খবর প্রকাশ করেছে।

সরকারি ওই কর্মকর্তা জানিয়েছেন, হজের ব্যাপারটি নিয়ে আমরা ব্যপক পর্যালোচনা করেছি এবং সবরকমের পরিস্থিতি আমাদের বিবেচনায় রয়েছে, আগামী এক সপ্তাহ নাগাদ আমরা চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে উপনীত হতে পারব বলে আশা করছি।

উল্লেখ্য, হজের আর খুব বেশি সময় বাকি নেই। প্রতি বছর আরবি শাওয়াল মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে হজের উদ্দেশে হজ পালনকারীরা সৌদি আরব যান। এ বছর এখনও হজের আয়োজন বা প্রস্তুতি শুরু করতে পারেনি দেশটি।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »