বিজনেস২৪বিডি ডেস্ক »

জাতীয় সংসদ থেকে পদত্যাগ করলেন আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য (এমপি) শেখ ফজলে নূর তাপস। ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে (ডিএসসিসি) মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার কারণে তার এই পদত্যাগ।

ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসের মিডিয়া সমন্বয়ক তারেক শিকদার বলেন, কিছুক্ষণ আগে সংসদ সদস্য পদ থেকে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন ঢাকা-১০ আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

গত ২৩ ডিসেম্বর জারি করা বিশেষ পরিপত্রে বলা হয়েছে, ‘সিটি করপোরেশন একটি সংবিধিবদ্ধ সরকারি কর্তৃপক্ষ হওয়ায় এর মেয়র পদটিকে হাইকোর্ট লাভজনক পদ হিসেবে ঘোষণা করেছেন। কাজেই ‘স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) আইন-২০০৯’ অনুযায়ী, মেয়র পদে অধিষ্ঠিত কোনো ব্যক্তি সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে অংশগ্রহণে অযোগ্য বলে বিবেচিত হবেন। তবে, ওই ব্যক্তি নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে অংশগ্রহণ করতে চাইলে তাকে ওই পদ থেকে পদত্যাগ করে প্রার্থী হতে হবে। কাউন্সিলর পদধারীরা লাভজনক পদে সার্বক্ষণিক অধিষ্ঠিত নন বলে তাদের পদে থেকে প্রার্থী হওয়ার ক্ষেত্রে আইনগত কোনো বাধা নেই।’

রোববার দুপুরে ধানমন্ডিতে দলীয় সভাপতি রাজনৈতিক কার্যালয়ে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বর্তমান মেয়র আতিকুল ইসলাম ও দক্ষিণে ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসের নাম ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

নাম ঘোষণার পর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তাপস বলেন, ‘জনগণ যদি আমাকে নির্বাচিত করে, তবে বৃহত্তর পরিসরে পুরান ঢাকার ঐতিহ্য সংরক্ষণ করে স্বমহিমায় প্রস্ফূটিত করব। রাজধানীতে যারা অবহেলিত, তাদের সব ধরনের নাগরিক সুবিধা দেয়া হবে। ইনশাআল্লাহ নির্বাচিত হতে পারলে ত্রিশ বছর মেয়াদি মহাপরিকল্পনার মাধ্যমে ২০৪১ এর স্বপ্ন সফল করব।’

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফুফাতো ভাই যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ ফজলুল হক মনির ছেলে শেখ ফজলে নূর। তিনি ঢাকা-১০ আসনের সাংসদ হিসেবে গত তিন সংসদে প্রতিনিধিত্ব করছেন। তার বড় ভাই শেখ ফজলে শামস গত ২৩ নভেম্বর যুবলীগের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে। ৩১ ডিসেম্বর দুই সিটির নির্বাচনের মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। ২ জানুয়ারি মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করা হবে। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ৯ জানুয়ারি।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »