পাকিস্তান সুপার লিগে হাফিজের তাণ্ডব

স্টাফ রিপোর্ট

পাকিস্তান সুপার লিগের চলতি আসরে শুরু থেকেই বিধ্বংসী মেজাজে ইউনিভার্স বস ক্রিস গেইল। প্রথম ম্যাচে ২৪ বলে ৩৯ রানের পর সোমবার দ্বিতীয় ম্যাচে খেলেছেন ৬৮ রানের ঝড়ো ইনিংস। তবে তার এই ইনিংস ম্লান হয়ে গেছে মোহাম্মদ হাফিজের ৭৩ রানের টর্নেডোর সামনে। পরপর দুই ম্যাচে হেরেছে গেইলের কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটরস।

সোমবার দিনের একমাত্র ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটরস ও লাহোর কালান্দারস। টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেটের বিনিময়ে ১৭৮ রান করে কোয়েটা। জবাবে মাত্র ১ উইকেট হারিয়ে ১৮.২ ওভারেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় লাহোর। জোড়া ফিফটি করেন মোহাম্মদ হাফিজ ও ফাখর জামান।

মূলত হাফিজ-ফাখর জুটিতেই ম্যাচ জিতেছে লাহোর। ইনিংস সূচনা করতে নেমে নবম ওভার পর্যন্ত খেলেছেন লাহোর অধিনায়ক সোহেল আখতার। নবম ওভারের চতুর্থ বলে আউট হওয়ার সময় তার নামের পাশে ২৬ বলে ২১ রানের ইনিংস। তবে দলের সংগ্রহ তখন ৬৪ রান। অর্থাৎ বাকি ২৬ বল থেকে আরও ৪৩ রান করে লাহোর।

তাদের রান তাড়ার গতি তুমুল হারে বেড়ে যায় হাফিজ নামার পর। অবিচ্ছিন্ন দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ফাখরের সঙ্গে মাত্র ৫৮ বলে যোগ করেন ১১৫ রান। শুরু থেকেই বিধ্বংসী মেজাজে খেলে মাত্র ৩৩ বলে ৫ চার ও ৬ ছয়ের মারে ৭৩ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন হাফিজ। অর্থাৎ ১১ বলে বাউন্ডারি থেকেই নেন ৫৬ রান।

অন্যদিকে শুরু থেকে ম্যাচ জেতা পর্যন্ত খেলা ফাখরের ব্যাট থেকে আসে ৫২ বলে ৮২ রানের ইনিংস। প্রায় দেড় ঘণ্টার বেশি সময় উইকেটে কাটিয়ে ৮ চার ও ২ ছয়ের মারে করেন এই রান। লাহোরের ৯ উইকেটের বড় জয়ে ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছেন ফাখর জামানই।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ১২ রানেই ২ উইকেট হারিয়ে ফেলে কোয়েটা। তৃতীয় উইকেটে ১০১ রানের জুটি গড়েন অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ ও তিন নম্বরে নামা ক্রিস গেইল। তারাই মূলত এনে দেন বড় সংগ্রহের ভিত।

ওপেনার থেকে ওয়ান ডাউন ব্যাটসম্যান হয়ে যাওয়া গেইল ৫টি করে চার-ছয়ের মারে করেন ৪০ বলে ৬৮ রান। অধিনায়ক সরফরাজ ৫ চারের মারে খেলেন ৩৩ বলে ৪০ রানের ইনিংস। শেষদিকে ২০ বলে ৩৩ রানের ক্যামিও ইনিংস খেলে দলকে ১৭৮ রানে পৌঁছে দেন মোহাম্মদ নওয়াজ। যা জয়ের জন্য যথেষ্ঠ ছিল না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *