একটি ভিত্তিহীন কিসসা

স্টাফ রিপোর্ট

জিবরীল আ.-কে নবীজীর জিজ্ঞাসা, আপনার বয়স কত?… নবীজী বললেন, আমিই ঐ তারকা…!!

আমাদের দেশের কোনো কোনো অসতর্ক বক্তার মুখে শোনা যায়, ফাতেমা রা.-কে নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, জিবরীল তোমার চাচা…। কেউ কেউ এভাবেও বলে, ফাতেমা রা. জিবরীলকে চাচা বললে জিবরীল আ. বলেন, আমি তোমার চাচা নই, জ্যাঠা (অর্থাৎ তোমার বাবার বড়)। কেউ বলে, নবীজী জীবরীল আ.-কে জিজ্ঞেস করলেন, আপনি বড়, নাকি আমি? জীবরীল আ. বললেন, আমি বড়। তখন নবীজী বললেন, হে জিবরীল! আপনার বয়স কত? তখন জিবরীল আ. বলেন, আমি আমার বয়স বলতে পারব না। তবে চতুর্থ হিজাবে (মানুষের ভাষায়- আসমানে) আমি একটি তারকা দেখেছি, যা প্রতি সত্তর হাজার বছরে একবার উদিত হয়। আমি বাহাত্তর হাজার বার ঐ তারকা উদিত হতে দেখেছি।

তখন নবীজী বললেন, হে জিবরীল! আমার রবের ইযযতের কসম, আমিই (ছিলাম) ঐ তারকা (অর্থাৎ আপনার সৃষ্টির আগে আমার সৃষ্টি)।

এটি বানোয়াট ও ভিত্তিহীন একটি কিসসা। নির্ভরযোগ্য কোনো সূত্রে তা পাওয়া যায় না।

এদেশের কোনো কোনো বক্তা কিসসাটিকে আরো চটকদার আকারে পেশ করার জন্য এর সাথে ‘চাচা আর জ্যাঠা’র বিষয়টি যুক্ত করেছে। অথচ আরবী ভাষায় ‘চাচা-জ্যাঠা’র বিষয় নেই; উভয়ের জন্য আরবী ভাষায় عَمّ শব্দটি ব্যবহৃত হয়।

আব্দুল্লাহ ইবনে সিদ্দীক আলগুমারী রাহ. ‘মুরশিদুল হা-ইর লিবায়ানি ওয়ায-ই হাদীসি জাবির’ কিতাবে কিসসাটি উল্লেখ করার পর বলেন-

وهذا كذب قبيح، قبح الله من وضعه وافتراه.

এটি একটি নিকৃষ্ট মিথ্যা (ও বানোয়াট কথা)। যে এটি জাল করেছে আল্লাহ তাকে লাঞ্ছিত করুন। -মুরশিদুল হা-ইর লিবায়ানি ওয়ায-ই হাদীসি জাবির, পৃ. ৫

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *