এমসি কলেজে গণধর্ষণ: ৮ আসামির বিরুদ্ধে চার্জশিট গ্রহণ

স্টাফ রিপোর্ট

সিলেটের মুরারিচাঁদ (এমসি) কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণ মামলায় আট আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) গ্রহণ করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) সকালে সিলেটের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মোহিতুল হক এ আদেশ দেন। এ সময় আট আসামিকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়।

চার্জশিটভুক্ত আসামিরা হলেন— এমসি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা সাইফুর রহমান, কলেজের ইংরেজি বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্র শাহ মাহবুবুর রহমান রণি, মাহফুজুর রহমান মাসুম, অর্জুন লস্কর, বহিরাগত রবিউল ইসলাম, তারেক, রাজন ও রাজনের তার সহযোগী আইনুল।

বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ‘আমরা আদালত থেকে দু্ই দিনের সময় নিয়ে তা পর্যালোচনা করে দেখেছি সকল আসামিকে অভিযোগপত্রে অভিযুক্ত করা হয়েছে। যার জন্য আমরা আপত্তি জানাইনি। অভিযোগপত্রের ব্যাপারে আমরা বাদী পক্ষের আইনজীবীরা সন্তুষ্ট পোষণ করলে আদালত তা আমলে নেয়।’

গত ৩ জানুয়ারি ও ১০ জানুয়ারি আলোচিত এ মামলার অভিযোগ গঠনের শুনানির নির্ধারিত তারিখ ছিল। তবে ওই দুদিনই আদালত তারিখ পিছিয়ে দেন।

গত বছরের ২৫ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে ৯টার দিকে এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে বেড়াতে আসা দম্পতির স্বামীকে আটকে রেখে নববধূকে কয়েকজন যুবক ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ ওঠে। এ ধর্ষণের ঘটনায় ৬ জনের নামোল্লেখসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন ওই গৃহবধূর স্বামী।

গত ২৯ নভেম্বর ডিএনএ রিপোর্ট হাতে পান মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের শাহপরাণ থানার ওসি (তদন্ত) ইন্দ্রনীল ভট্টাচার্য। আসামিদের ডিএনএর সঙ্গে ধর্ষণের ঘটনাস্থলের ডিএনএ নমুনার মিল রয়েছে বলে রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে।

পরে গত ৩ ডিসেম্বর সকালে আটজনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *