বিজনেস২৪বিডি ডেস্ক »

পরিষদের সাবেক সদস্য, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পরিষদের সাবেক জেলা প্রশাসক, প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ অ্যাডভোকেট সৈয়দ এ কে এম এমদাদুল বারী মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)।

রোববার (৭ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৭টায় ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। তার বয়স হয়েছিল ৮৮ বছর। বিষয়টি নিশ্চিত করেন তার জ্যেষ্ঠ সন্তান সৈয়দ এখতেশামুল বারী (তানজিল)।

সৈয়দ এমদাদুল বারী দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত জটিলতায় ভুগছিলেন। তিনি ছিলেন মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে বিজলা ক্যাম্পের সভাপতি। তিনি দীর্ঘদিন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

প্রবীণ এ আওয়ামী লীগ নেতার প্রয়াণের খবরে জেলাজুড়ে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

এমদাদুল বারীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক।

এক শোকবার্তায় আইনমন্ত্রী মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

শোকবার্তায় আনিসুল হক বলেন, তার (আইনমন্ত্রী) বাবা অ্যাডভোকেট সিরাজুল হকের ঘনিষ্ঠ সহকর্মী ছিলেন এমদাদুল বারী। তারা দুজন অত্যন্ত সোহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রেখে এলাকায় রাজনীতি করেছেন। ১৯৭০ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ (কসবা) আসন থেকে অ্যাডভোকেট সিরাজুল হক পাকিস্তান জাতীয় পরিষদ সদস্য (এমএনএ) এবং অ্যাডভোকেট এমদাদুল বারী প্রাদেশিক পরিষদ সদস্য (এমপিএ) নির্বাচিত হয়েছিলেন।

তার মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »