বিজনেস২৪বিডি ডেস্ক »

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের চাহিদা ও বাস্তবতার আলোকে নতুন ঋণ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। একইসঙ্গে
ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের থেকে ঋণ আদায়ে স্থগিতাদেশ দেওয়া হয়েছে। এসব বিষয়ে ব্যাংকগুলোর নেওয়া পদক্ষেপ আগামী ৩১
অক্টোবরের মধ্যে নির্ধারিত ফরমে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে জানাতে হবে।
বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে সার্কুলার জারি করে ব্যাংকগুলোতে পাঠানো হয়।
সার্কুলারে বলা হয়েছে, ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চলের কৃষকদের ক্ষতি কাটিয়ে উঠে কৃষি কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে মৎস্য, প্রাণিসম্পদ
খাতে প্রকৃত চাহিদা ও বাস্তবতার আলোকে নতুন ঋণ বিতরণ করতে হবে। পরিস্থিতি উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্তদের
থেকে কৃষিঋণ আদায় স্থগিত রাখতে হবে। একইসঙ্গে ডাউনপেমেন্টের শর্ত শিথিল করে ঋণ পুনঃতফসিলের সুবিধা, নতুন
করে আর সার্টিফিকেট মামলা না করে ব্যাংকার-গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে তামাদি হওয়া ঠেকাতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে
বলা হয়েছে।
আগে দায়ের করা সার্টিফিকেট মামলার তাগাদা আপাতত বন্ধ থাকবে। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের পুনর্বাসনের লক্ষ্যে বসতবাড়ির
আঙিনায় হাঁস, মুরগি ও গবাদিপশু পালন, গোখাদ্য উৎপাদন, ক্রয় এবং অন্যান্য আয় উৎসারী কাজে ঋণের প্রয়োজনীয়
ব্যবস্থা নিতে হবে।
নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সম্প্রতি অতি বৃষ্টি এবং নদ-নদীর পানি বৃদ্ধির ফলে দেশের বিভিন্ন জেলার কৃষকরা ব্যাপকভাবে
ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। বিশেষ করে, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, নীলফামারী, রংপুর, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, জামালপুর,
নওগাঁ, সিলেট, সুনামগঞ্জ, ফরিদপুর, শরিয়তপুর, রাজবাড়ী, মাদারীপুর, মানিকগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, ফেনী, নেত্রকোনা ও ঢাকায়
আকস্মিক বন্যায় কৃষিজাত ফসলের ক্ষতি হয়েছে। এতে করে এসব অঞ্চলের কৃষকরা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। বন্যা
পরিস্থিতি মোকাবিলায় ব্যাংকগুলোকে অবিলম্বে এসব নির্দেশনা পালন করতে হবে।

শেয়ার করুন »

মন্তব্য করুন »