স্বাস্থ্যখাত সম্পর্কে নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে সকলপক্ষকে একযোগে কাজ করতে হবে: বাংলাদেশ হেলথ ওয়াচ ও উন্নয়নসমন্বয়ের সংলাপে বক্তারা

স্টাফ রিপোর্ট

২০১৮ সালের জাতীয় নির্বাচনের আগে প্রকাশিত রাজনৈতিক দলগুলোর ইশতেহারে স্বাস্থ্য সেবার সার্বিক মানোন্নয়নের জন্য যে অঙ্গিকারগুলো করা হয়েছিলো সেগুলো করোনা পরবর্তি বাস্তবতায় আরও বেশি প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠেছে। ইতোমধ্যে তিনটি অর্থবছরের বাজেটে এ লক্ষ্যে উল্লেখযোগ্য বরাদ্দ দেয়া হলেও এখনও আরও অনেক দূর যেতে হবে। তবে এসব লক্ষ্য পূরণ সরকারের একার পক্ষে সম্ভব নয়। সরকারের বাইরে থাকা অংশীজনদেরও সরকারের পরিপূরক ভূমিকা নিতে হবে। শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১) বাংলাদেশ হেলথ ওয়াচ ও উন্নয়নসমন্বয়ের যৌথ আয়োজনে “স্বাস্থ্যসেবা বিষয়ে ২০১৮-এর নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিগুলো পূরণে অগ্রগতি” শিরোনামে অনলাইন জাতীয় সংলাপে এমন মতামত ব্যক্ত করেন অংশগ্রহণকারীরা।

মূলনিবন্ধ উপস্থাপন করেন উন্নয়নসমন্বয়ের সভাপতি, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অধ্যাপক ড. আতিউর রহমান। আলোচক হিসেবে স্বাস্থ্য খাতের বিভিন্ন অংশীজনদের পাশাপাশি অংশ নেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, এমপি; স্বাস্থ্য বিষয়ক সংসদীয় কমিটির সদস্য ড. আফম রুহুল হক, এমপি; সিরাজগঞ্জ ০২ আসনের সংসদ সদস্য ড. হাবিবে মিল্লাত, এমপি; চাঁপাইনবাবগঞ্জ ০১ আসনের সংসদ সদস্য ড. সামিল উদ্দিন আহম্মেদ শিমুল, এমপি; গাইবান্ধা ০১ আসনের সংসদ সদস্য শামীম হায়দার পাটোয়ারী, এমপি; এবং সংরক্ষিত মহিলা আসন ৩০ এর সংসদ সদস্য গ্লোরিয়া ঝর্ণা সরকার, এমপি। বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের সভাপতি ড. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন ও আলোচনায় অংশ নেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব মিথিলা ফারজানা।

ড. আতিউর রহমান মূলনিবন্ধে বলেন, স্বাস্থ্যসেবার মানোন্নয়নের প্রতিশ্রুতি কতোটা বাস্তবায়িত হচ্ছে তা বুঝতে কেবল বাজেট বরাদ্দ নিয়ে বিশ্লেষণ করার চেয়ে, ওই বরাদ্দ দিয়ে কি কি লক্ষ্য অর্জন করার চেষ্টা হচ্ছে তাও বিবেচনায় নেয়া দরকার। এ জন্য সরকারের মধ্যম মেয়াদি বাজেট কাঠামোবা এমটিবিএফ-এ নতুন নতুন কর্মকৃতি নির্দেশক বাকি পারফমেন্স ইন্ডিকেটর যুক্ত করা উচিৎ। রুহুল হক, এমপি বলেন, জনগণের দোর গোড়ায় মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছাতে হলে স্বাস্থ্যখাতে পর্যাপ্ত জনবল নিশ্চিত করাকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেয়া দরকার। আর স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনার বিকেন্দ্রীকরণ ছাড়া দ্রুত ও সহজলভ্য সেবা সকলের জন্য নিশ্চিত করা সম্ভব নয় বলে অভিমত ব্যক্ত করেন শামীম হায়দার, এমপি। হুইপ সাঈদ আল মাহমুদ, এমপি জানান, সরকার তার নির্বাচনী অঙ্গিকারগুলো বাস্তবায়নে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ এবং বহু চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে এই করোনাকালেও সে লক্ষ্যে সরকারের বিভাগ ও মন্ত্রণালয়গুলো কাজ করে যাচ্ছে। আয়োজকদের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. রুমানা হক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *