সেঞ্চুরি করে ‘দ্রুততম’ বাবর

স্টাফ রিপোর্ট

মাত্র ৫৫ রানে চতুর্থ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে গিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। সেখান থেকে তাদেরকে উদ্ধার করেন রসি ফন ডার ডুসেন, ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরিতে দলকে এনে দেন ২৭৩ রানের সংগ্রহ। তবে সেটি জয়ের জন্য যথেষ্ঠ হয়নি। দ্বিতীয় ইনিংসে ক্যারিয়ারের ১৩তম সেঞ্চুরি করে দলকে জিতিয়েছেন পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম।

একই ম্যাচে করা এ দুই সেঞ্চুরিই নাম লিখিয়েছে দুইটি আলাদা রেকর্ডে। হাশিম আমলা-বিরাট কোহলিদের পেছনে ফেলে বিশ্বের দ্রুততম ব্যাটসম্যান হিসেবে ১৩তম ওয়ানডে সেঞ্চুরি করেছেন বাবর। অন্যদিকে দক্ষিণ আফ্রিকার বয়স্কতম ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ানডেতে প্রথম সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন ডুসেন।

এছাড়া পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচটিতে হয়েছে আরও বেশ কিছু রেকর্ড। যেগুলো নিচে তুলে ধরা হলো:

পাকিস্তানকে ৩ উইকেটে জয় এনে দেয়ার পথে নিজের ৭৬ নম্বর ওয়ানডে ইনিংসেই ১৩তম সেঞ্চুরি করে ফেলেছেন বাবর। একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আর কোনো পুরুষ ক্রিকেটার এত কম সময়ে ১৩ সেঞ্চুরি করতে পারেননি। নারী ক্রিকেটে সমান ৭৬ ইনিংসে ১৩ সেঞ্চুরি করেছিলেন অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি ম্যাগ ল্যানিং। আমলা ৮৩ ও কোহলি ৮৬ নম্বর ইনিংসে করেছিলেন নিজেদের ১৩তম সেঞ্চুরি।

ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি করার দিন ডুসেনের বয়স ৩২ বছর ৫৪ দিন। দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে খেলতে নেমে প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরি পেতে এত বেশি বয়স হয়নি আর কোনো ব্যাটসম্যান। এর আগে ১৯৯৫ সালে ৩১ বছর ৩৩৭ দিন বছরে নিজের প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরি করেছিলেন মাইক রিন্ডেল। দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অধিনায়ক শন পোলক নিজের প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরি করেছিলেন ৩৩ বছর ৩২৫ দিন বয়সে। কিন্তু তিনি সেই ম্যাচটি খেলেছেন আফ্রিকা একাদশের হয়ে।

অধিনায়ক হিসেবে ওয়ানডেতে বাবরের এটি দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। গতবছরের নভেম্বরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সবশেষ ওয়ানডেতে ১২৫ রানের ইনিংস খেলেছিলেন তিনি। পাকিস্তানের প্রথম অধিনায়ক হিসেবে পরপর দুই ম্যাচে সেঞ্চুরির কীর্তি এটি। এছাড়া ১০৩ রানের ইনিংসটি সফল রান তাড়ার ম্যাচে যেকোনো পাকিস্তানি অধিনায়কের সর্বোচ্চ রান।

দক্ষিণ আফ্রিকার করা ২৭৩ রান তাড়ার লক্ষ্যে দ্বিতীয় উইকেটে ১৭৭ রানের জুটি গড়েছেন ইমাম উল হক ও বাবর। যা কি না দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে পাকিস্তানের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের জুটি। ২০০২ সালে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে ২৫৭ রানের জুটি গড়েছিলেন সেলিম এলাহি ও আব্দুল রাজ্জাক।

রান তাড়ার ম্যাচে বাবর আজমের এটি চতুর্থ সেঞ্চুরি। শুক্রবার ৪০তম বারের মতো রান তাড়া করতে চার নম্বর সেঞ্চুরিটি করেছেন তিনি। পাকিস্তানের হয়ে রান তাড়ার ম্যাচে বাবরের চেয়ে বেশি সেঞ্চুরি রয়েছে শুধুমাত্র সাঈদ আনোয়ারের। এ কিংবদন্তি ১০৫টি রান তাড়ার ম্যাচে ১০ সেঞ্চুরি করেছেন।

বাবরের সেঞ্চুরির পরেও ম্যাচটি একদম শেষ বলে গিয়ে জিতেছে পাকিস্তান। এ নিয়ে ষষ্ঠবারের মতো শেষ বলে ওয়ানডে জিতল তারা। শুধুমাত্র দক্ষিণ আফ্রিকা তাদের চেয়ে বেশিবার (৭) শেষ বলে ম্যাচ জিতেছে। প্রায় ১৬ বছর পর এমন কিছু করল পাকিস্তান। সবশেষ ২০০৫ সালে ভারতের বিপক্ষে শেষ বলে জিতেছিল তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *