ভিশনের বিজ্ঞাপনে জাহিদ হাসান

ইলেকট্রনিক্স পণ্যের সুবিদিত ব্র্যান্ড ভিশন এর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হয়েছেন জনপ্রিয় অভিনেতা জাহিদ হাসান। ২০১৬ সালের এপ্রিল মাস থেকে এই প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে যুক্ত আছেন। ভিশনের সঙ্গে পাঁচ বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়ে, তখন থেকেই প্রতিষ্ঠানটির নানা পণ্যের প্রচারণায় অংশ নিয়ে আসছেন তিনি।

সেই ধারাবাহিকতায় আবারও ভিশনের নতুন একটি বিজ্ঞাপনের মডেল হলেন জনপ্রিয় অভিনেতা জাহিদ হাসান। এখানে এগিয়ে যাওয়া নতুন এক বাংলাদেশকে তুলে ধরবেন এই অভিনেতা। এরই মধ্যে ঢাকা ও ঢাকার বাইরে বেশ কিছু মনোরম লোকেশনে বিজ্ঞাপনটির চিত্রায়ণ হয়েছে। সম্প্রতি রাজধানীর কোক স্টুডিওতেও হয়েছে শুটিং।

সম্প্রতি বিজ্ঞাপনটির শুটিং চলাকালে আলাপ হয় জাহিদ হাসানের সঙ্গে। গুণী এই অভিনেতা  বলেন, ‘আমার মনে হয়েছে এর আগে যে কয়টি প্রতিষ্ঠানের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হয়েছি, সেটা নামে মাত্রই ছিল। কিন্তু ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডরের রেসপন্সিবলিটি কী?, এটার রেস্পেক্টের জায়গাটা ও নার্সিংয়ের জায়গাটা কোথায়? ওনারশিপের যায়গাটা কোথায়? সেটা ভিশনের সঙ্গে থেকে ভালোভাবে অনুধাবন করেছি। ভিশনের যারা দায়িত্বে আছেন তারা সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।’

নতুন বিজ্ঞাপনটি প্রসঙ্গে জাহিদ হাসান বলেন, ‘ভিশন সুন্দর মুখের হাসি দিয়ে টোটাল টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া ভরিয়ে তুলেছে। সারা দেশে তাদের বর্তমান অবস্থান কী সেটাই উঠে আসবে এখানে। উঠে আসছে এগিয়ে যাওয়া বাংলাদেশের চিত্র। ’

বিজ্ঞাপনটি নির্মাণ করছেন প্রাণ আর এফ এল এর ইন হাউস নির্মাতা নাফিস রেজা মনি, আছেন ভারতীয় ডিওপি বিজিতেষ দে ও তার সহকারী রাহুল রিজভী।

ভিশনের বিক্রয় ও বিপণন মহাব্যবস্থাপক মাহবুবুল ওয়াহিদ বলেন, ‘এটা ভিশনের থিমেটিক টিভিসি। টোটাল ভিশনকে আমরা তুলে ধরার চেস্টা করেছি এক মিনিটের বিজ্ঞাপনচিত্রে। প্রথম যখন ভিশন আসে তখন আমাদের নির্ভর করতে হতো বিদেশি অনেক প্রযুক্তির উপরে। বর্তমানে শতকরা ৬০ ভাগ পণ্য আমরা নিজেরা তৈরি করছি। বাংলাদেশে আবহাওয়া উপযোগী করে পণ্যগুলো আমরা তৈরি করছি। এর মধ্যে আছে রেফ্রিজারেটর, ইকেট্রিক কেটলি, ইন্ডাকশন কুকার, রুম হিটার,সিলিং ফ্যান, নেট ফ্যান প্রভৃতি।’

মাহবুবুল ওয়াহিদ আরও বলেন,‘দেশের পণ্য যেন আমাদের দেশের মানুষ সাচ্ছন্দে ব্যবহার করতে পারে সেই লক্ষেই আমরা এগিয়ে চলেছি। ভিশনের প্রথম বিজ্ঞাপন যখন নির্মাণ করেছিলাম তখন আমরা একটা স্বপ্নের কথা বলে ছিলাম, ‘এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ’ এবার আমরা বলেছি ‘এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ’। আমরা ভিশন দেশকে এগিয়ে নিতে ভূমিকা রাখার চেষ্টা করেছি। আমাদের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর যে কথা দিয়েছিলেন, সেই কথা তিনি রেখেছেন।’

জানা গেল, শিগগিরই বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে বিজ্ঞাপনটির প্রচার শুরু হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.