বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ারদর কমেছে

স্টাফ রিপোর্ট

টানা আট কার্যদিবস উত্থানের পর গতকাল পতন হয়েছে দেশের উভয় পুঁজিবাজারে। গতকাল উভয় স্টক এক্সচেঞ্জের সবগুলো সূচক কমেছে। একই সঙ্গে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর কমেছে। গতকাল মোট ৩৭৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশগ্রহণ করেছে, এর মধ্যে ২৬১টির বা ৬৯ দশমিক ৪১ শতাংশ শেয়ার ও ইউনিট দর কমেছে। তবে টাকার পরিমাণে লেনদেন আগের কার্যদিবস থেকে বেড়েছে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, গতকাল লেনদেন শুরুর পর থেকে সূচক ঊর্ধ্বমুখী ছিল। এর কিছু সময় পর সূচকের নিম্নমুখী প্রবণতা লক্ষ করা যায়। এরপর আবার উত্থান ও পতনের মাধ্যমে দিনশেষে পতন অবস্থায় লেনদেন শেষ হয়। গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৫৬ দশমিক ৬৫ পয়েন্ট কমে ৭ হাজার ২০২ দশমিক শূন্য ৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে, যা এর আগের কার্যদিবসে ছিল ৭ হাজার ২৫৮ দশমিক ৭৪ পয়েন্টে। গতকাল সূচকের পতনে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা ছিল স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস, লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেড, বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি লিমিটেড, ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড, জিপিএইচ ইস্পাত লিমিটেড, ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড, বিএসআরএম লিমিটেড, সামিট পাওয়ার লিমিটেড ও ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টস লিমিটেডের।

এদিকে ডিএসইর শরিয়াহ সূচক ডিএসইএস গতকাল দিনশেষে ১৬ দশমিক ৩৪ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৫৭৫ দশমিক ৯৬ পয়েন্টে অবস্থান করছে, যা আগের দিন ছিল ১ হাজার ৫৯২ দশমিক ৩১ পয়েন্টে। ব্লু-চিপ সূচক ডিএস-৩০ দিনের ব্যবধানে ৯ দশমিক শূন্য ৩ পয়েন্ট কমে গতকাল ২ হাজার ৬৩৮ দশমিক ১০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে, আগের কার্যদিবস শেষে যা ছিল ২ হাজার ৬৪৭ দশমিক ১৪ পয়েন্টে। গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ৭০৮ কোটি ৪০ লাখ ৪১ হাজার টাকা। যা এর আগের কার্যদিবসে ছিল ২ হাজার ৬৯৬ কোটি ৫৮ লাখ ২৫ হাজার টাকা। এদিন ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৭৬টি কোম্পানি, মিউচুয়াল ফান্ড ও করপোরেট বন্ডের মধ্যে দিনশেষে দর বেড়েছে ৮৩টির, কমেছে ২৬১টির আর অপরিবর্তিত ছিল ৩২টি সিকিউরিটিজের বাজারদর।

খাতভিত্তিক লেনদেনচিত্রে দেখা যায়, গতকাল ডিএসইর মোট লেনদেনের ১২ দশমিক ১২ শতাংশ দখলে নিয়ে শীর্ষে অবস্থান করছে ওষুধ ও রসায়ন খাত। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১০ দশমিক ৯৫ শতাংশ দখলে নিয়েছে প্রকৌশল খাত। ১০ দশমিক ৩৭ শতাংশ লেনদেনের ভিত্তিতে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে বস্ত্র খাত। ৮ দশমিক ৯৭ শতাংশ লেনদেনের ভিত্তিতে চতুর্থ অবস্থান ছিল আর্থিক খাতের। আর ৮ দশমিক ৪৫ শতাংশ লেনদেনের ভিত্তিতে পঞ্চম অবস্থানে রয়েছে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাত।

দেশের আরেক পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) গতকাল সিএসসিএক্স সূচক দিনের ব্যবধানে ৮৪ দশমিক ৪০ পয়েন্ট কমে ১২ হাজার ৫৮৮ দশমিক ৬৪ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *