বিক্রি বেড়েছে ফুটপাতে, শপিংমলে অলস সময় কাটছে বিক্রেতাদের

স্টাফ রিপোর্ট

ঈদুল আজহার কেনাকাটার মূল আকর্ষণ মূলত কোরবানির পশু কেনাকে ঘিরে। এই ঈদে পোশাকসহ অন্যান্য সামগ্রীর চাহিদা কম থাকলেও সামান্য কিছু বেচাকেনার প্রত্যাশা করেন ব্যবসায়ীরা। তবে করোনার প্রভাব ও ঈদের পরে ফের লকডাউনের ঘোষণায় কাঙ্ক্ষিত ক্রেতা নেই মার্কেটগুলোতে।

বিক্রেতারা বলছেন, গত দুই কোরবানির ঈদ থেকেই সুবিধা করতে পারছেন না তারা। ঈদের পর লকডাউন থাকায় গ্রামে চলে গেছে বেশিরভাগ মানুষ। আর যারা রাজধানীতে আছেন তাদের অধিকাংশই কিছু কিনতে হলে শপিংমল থেকে না কিনে ফুটপাতের ভাসমান দোকান থেকেই কিনছেন।

সোমবার (১৯ জুলাই) সরেজমিন দেখা গেছে, মিরপুর ১০, ২, ১ ও ১২ নম্বরসহ বেশ কয়েকটি এলাকার শপিংমলগুলোতে ভিড় নেই একেবারেই। কিছু দোকানে ক্রেতা থাকলেও বেশিরভাগ দোকানই ছিল ফাঁকা।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, এই ঈদের মৌসুমে অন্য সময় যে স্বাভাবিক বিক্রি হয় এবার সেটুকুও হচ্ছে না।

মিরপুর ১২ নম্বরে আড়ংয়ের বিক্রয়কর্মী সোহাম বলেন, ‘ঈদে আড়ংয়ে বাড়তি চাপ থাকে। এবার সেটা নেই। যারা আসছেন তারা ঈদের কেনাকাটা করছেন না, তারা  রেগুলার কেনাকাটা করছেন।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *