পাম অয়েলের রপ্তানি নিষিদ্ধ করছে ইন্দোনেশিয়া

স্টাফ রিপোর্টার

পাম অয়েলের রপ্তানি নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে ইন্দোনেশিয়া। শুক্রবার বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় পাম অয়েল উৎপাদনকারী দেশটি এ ঘোষণা দিয়েছে।

রান্না ছাড়াও কেক থেকে শুরু করে প্রসাধনী পর্যন্ত পণ্যগুলিতে পাম অয়েল ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। এই তেল রপ্তানি ইন্দোনেশিয়া বন্ধ করলে বিশ্বব্যাপী প্যাকেটজাত খাদ্য উৎপাদনকারীদের জন্য খরচ বাড়তে পারে। এর ফলে সারা বিশ্বে খাদ্য মূল্যস্ফিতি আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো বলেছেন,  তিনি প্রধান শস্য উৎপাদনকারী ইউক্রেনে রাশিয়ার আক্রমণের পরে বিশ্বব্যাপী খাদ্য মূল্যস্ফীতি রেকর্ড পরিমাণ বেড়েছে।, তিনি তার দেশে খাদ্য পণ্যের প্রাপ্যতা নিশ্চিত করতে চান।

তিনি বলেছেন, ‘আমি এই নীতির বাস্তবায়ন পর্যবেক্ষণ ও মূল্যায়ন করব যাতে দেশীয় বাজারে রান্নার তেলের প্রাপ্যতা পর্যাপ্ত ও সাশ্রয়ী হয়।’

সলভেন্ট এক্সট্র্যাক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডিয়া (এসইএ) সংস্থার সভাপতি অতুল চতুর্বেদী জানিয়েছেন, ইন্দোনেশিয়ার এই পদক্ষেপ পাম অয়েলের শীর্ষ ক্রেতা ভারত এবং বিশ্বের ভোক্তাদের ক্ষতি করবে। এই পদক্ষেপ দুর্ভাগ্যজনক এবং পুরোপুরি অগ্রহণযোগ্য।’

আগামী ২৮ এপ্রিল থেকে ইন্দোনেশিয়ার ঘোষণা কার্যকর হবে। এর প্রতিক্রিয়া বিকল্প উদ্ভিজ্জ তেলের দাম দাম বাড়তে শুরু করেছে। দ্বিতীয় সর্বাধিক ব্যবহৃত উদ্ভিজ্জ তেল সয়াবিনের দাম ইতোমধ্যে ৪ দশমিক ৫ শতাংশ বেড়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.