নাইরোবিতে ২৫ লাখ ডলার বিনিয়োগ জেআইসিএর

স্টাফ রিপোর্ট

নাইরোবিতে একটি মার্কিন স্টার্টআপে ২৫ লাখ ডলার বিনিয়োগ করেছে জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জেআইসিএ)। এ বিনিয়োগের মাধ্যমে শহরের ক্রমবর্ধমান স্যানিটেশন চাহিদা মেটাতে ও বাইপ্রডাক্ট হিসেবে সার উৎপাদন কেনিয়ার কৃষকদের সহায়তা করবে বলে আশা করা হচ্ছে। খবর কিয়োদো নিউজ।

স্যানার্জি নামের মার্কিন স্টার্টআপটি ‘চক্রাকার অর্থনীতি’ পদ্ধতি অনুসরণ করে। সংস্থাটি নাইরোবির বাজার, খামার ও রেস্তোরাঁর মতো জায়গা থেকে জৈব বর্জ্য সংগ্রহ করে এবং তারপর সেই বর্জ্যকে প্রাণী খাদ্য ও জৈব জ্বালানিসহ প্রয়োজনীয় পণ্যে রূপান্তর করে। স্যানার্জি তার কারখানায় জৈব বর্জ্য খাওয়া ব্ল্যাক সোলজার শূককীটের লার্ভা থেকে ইনসেক্ট ফিড উৎপাদন ও বিক্রি করে। এ লার্ভাকে কুজাপ্রো বলা হয়।

জাপানি সরকার সমর্থিত সংস্থাটি জানিয়েছে, গবাদি পশু ও মাছ উৎপাদনের জন্য বিকল্প এ প্রোটিন ফিডের চাহিদা ক্রমেই বাড়ছে। স্যানার্জি কুজাপ্রো ব্ল্যাক সোলজার পোকাদের জৈব বর্জ্য খাওয়ানোর পর অবশিষ্টাংশ থেকে জৈব সার তৈরি করে। এ সার কেনিয়াজুড়ে বিক্রি করা হয়।

জেআইসিএর বেসরকারি খাতের অংশীদারিত্ব এবং আর্থিক বিভাগের মহাপরিচালক শোহেই হারা বলেন, আমরা স্যানার্জির অগ্রগামী চক্রাকার অর্থনীতির মডেল সম্প্রসারিত করতে পেরে রোমাঞ্চিত। এটি বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, স্যানিটেশন, কৃষি উৎপাদনশীলতা ও খাদ্যনিরাপত্তার মতো একাধিক সামাজিক সমস্যার সমাধান করে। আর এগুলো আফ্রিকার দেশগুলোর সাধারণ সমস্যা। জেআইসিএ এমন সামাজিক সমস্যাগুলো মোকাবেলায় বৃহত্তর স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে অংশীদারিত্ব বিকাশ অব্যাহত রাখবে।

কেনিয়ার রাজধানীর জনসংখ্যা ২০০৯ সালের ৩০ লাখ ৪০ হাজার থেকে ২০৩০ সালের মধ্যে ৫৯ লাখ ৪০ হাজারে পৌঁছাবে। জেআইসিএর মতে, এতে জৈব বর্জ্যের উৎপাদন দৈনিক ১ হাজার ৮৪৮ টন থেকে ৩ হাজার ৯৯০ টনে উন্নীত হবে।

ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির তিনজন শিক্ষার্থী ২০০৯ সালে নাইরোবির শহুরে বস্তিতে স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশনকে সাশ্রয়ী ও সহজলভ্য করার জন্য স্যানার্জি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।

২০১৫ সালে সংস্থাটি প্রথম নাইরোবিতে জৈব রিসাইক্লিং কারখানা প্রতিষ্ঠা করে। কারখানাটি বছরে ১২ হাজার টন বর্জ্য প্রক্রিয়া করতে সক্ষম। চলতি বছরের শুরু থেকে সংস্থাটি পূর্ব আফ্রিকার সবচেয়ে বড় ইনসেক্ট ফিড কারখানাও পরিচালনা করছে। স্যানার্জি আফ্রিকা ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অন্যান্য শহরেও কার্যক্রম বিস্তৃত করতে চাইছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *