দর্শক কাঁদাচ্ছে ‘২১ বছর পরে’

স্টাফ রিপোর্ট

মা ও ছেলের সম্পর্কের গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে ঈদ নাটক ‘২১ বছর পরে’। কোরবানি ঈদে সেরা নাটকগুলোর একটি বলা যেতে পারে এটিকে। সোশ্যাল মিডিয়ায় দর্শক নাটকটি নিয়ে নিজেদের ভালো লাগার কথা লিখছেন৷

এ নাটকের গল্পে মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী মনিরা আক্তার মিঠু আর ছেলের চরিত্রে জনপ্রিয় অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্ব। এনটিভিতে প্রচারিত নাটকটি ইউটিউবেও মুক্তি দেয়া হয়েছে।

মাহমুদুর রহমান হিমির নিজের গল্প ও চিত্রনাট্যে ‘২১ বছর পরে’ নাটকটি ফেসবুক ও ইউটিউবে তুমুল প্রশংসা পাচ্ছে। শুধু দেশে নয়, ভারত থেকেও নাটকটি দেখে অনেকে মুগ্ধতার কথা জানাচ্ছেন।

সবাই প্রশংসা করছেন অপূর্বর অভিনয়ের৷ মুনীরা মিঠুর অভিনয়ও মনে ধরেছে দর্শকের৷

মৌসুমী রায় ইউটিউবের কমেন্ট-বক্সে মন্তব্য করেছেন, ‘কাঁদিয়ে দিলে হিমি ভাইয়া, এক কথায় অসাধারণ অসাধারণ অসাধারণ; মা শব্দটাই এমন একটি শব্দ। অসাধারণ অভিনয় তিন জনেরই। কী লিখব, ভাষা খুঁজে পাচ্ছি না। এক কথায় অনবদ্য। অসংখ্য ধন্যবাদ পরিচালক হিমি ভাইয়াকে, ধন্যবাদ মনিরা মিঠু আপুকে, ধন্যবাদ ফারিণকে, আর অপূর্ব তো অপূর্বই, বাদ আরও ধন্যবাদ ইউনিটের সকল টিমকে। এত সুন্দর একটি নাটক উপহার দেওয়ার জন্য।’

এম এম জীবন রহমান লিখেছেন, ‘প্রবাসী তাই মায়ের কথা মনে পড়তেই দুচোখে অজান্তেই পানি চলে আসল। কতদিন হলো দেখিনা তার মুখ।কতদিন হাত দিয়ে ছুয়ে দেখিনা তার মুখ খানি।’

হালিমা খাতুন লিখেছেন, ‘অপূর্ব সমালোচকরা এই নাটকগুলো কি দেখেনা। তাদের এগুলো দেখানো উচিত। অপূর্ব অবশ্যই অসাধারণ অভিনেতা।’

যার মৃত্যু নিয়ে এই আবেগে। সেই মনিরা আক্তার মিঠুও নাটকটি দেখে লিখেছেন, ‘জিয়াউল ফারুক অপূর্ব, ছোট্ট বাচ্চা অপূর্ব (তারিফ), মাহমুদুর রহমান হিমি তোমাদের জড়িয়ে ধরে হাউমাউ করে কাঁদতে পারলে একটু স্বাভাবিক হতাম। আমি আর কত দিনই বা বাঁচব, আমাদের দর্শকদের বলছি, ২১ বছর পরে হলেও আমাকে স্মরণ করবেন।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *