ডেল্টা লাইফের পর্ষদ অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত

স্টাফ রিপোর্ট

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত জীবন বীমা কোম্পানি ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের পরিচালনা পর্ষদ অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত (সাসপেন্ড) করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)।

এর আগে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ চার মাসের জন্য স্থগিত করে আইডিআরএ। এখন নতুন করে স্থগিতের মেয়াদ বাড়ানো হলো।

বৃহস্পতিবার জারি করা আইডিআরএর এ সংক্রান্ত নির্দেশনায় বলা হয়েছে, চার মাসের জন্য ডেল্টা লাইফের পরিচালনা পর্ষদ সাসপেন্ড করা হয়েছিল। কিন্তু বৈশ্বিক মহামারি কারোনাভাইরাসের কারণে অনিশ্চিত লকডাউন ও সার্বিক চলাচলে বিধি-নিষেধ আরোপের ফলে সাসপেনশনের নির্ধারিত উদ্দেশ্যসমূহ এখন পর্যন্ত পূরণ করা সম্ভব হয়নি।

‘এ অবস্থায় ডেল্টা লাইফের আয়-ব্যয়, সরকারি রাজস্ব তথা ভ্যাট ফাঁকি, আয়কর ফাঁকি, স্ট্যাম্প ডিউটি ফাঁকি এবং অন্যান্য গুরুতর অনিয়মের বিষয়ে নিরীক্ষা প্রতিবেদন সম্পন্ন করতে আইডিআরএ কর্তৃক পরবর্তী নির্দেশ প্রদান না করা পর্যন্ত কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের সাসপেনশন অব্যাহত থাকবে’ বলে এ সংক্রান্ত চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

এর আগে গত ১১ ফেব্রুয়ারি পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত এই কোম্পানিটিতে মাসিক ৪ লাখ টাকা সম্মানীতে আইডিআরএ’র সাবেক সদস্য সুলতান-উল-আবেদীন মোল্লাকে প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়।

এ বিষয়ে সুলতান-উল-আবেদীন মোল্লাকে পাঠানো চিঠিতে আইডিআরএ উল্লেখ করে, বীমা আইন ২০১০ এর ৯৬ ধারার (১) উপধারা অনুযায়ী প্রশাসক হিসেবে চূড়ান্তভাবে দায়িত্ব গ্রহণের ৪ মাসের মধ্যে কর্তৃপক্ষের কাছে একটি প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে।

বীমা আইন ২০১০ এর ধারা ৯৫ (৩) এর আলোকে নুতন পলিসি ইস্যু পূর্বের ন্যায় অব্যাহত রাখা এবং কোম্পানির ব্যবসা ও অন্যান্য কার্যক্রম যথারীতি পরিচালনা করতেও বলা হয় ওই নির্দেশনায়।

চিঠিতে বলা হয়েছে, কোম্পানির প্রশাসনিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য মো. শাখাওয়াত নবী, (অবসরপ্রাপ্ত অতিরিক্ত সচিব) এবং মো. রফিকুল ইসলাম (অবসরপ্রাপ্ত যুগ্মসচিব)-কে পরামর্শক (কনসালটেস্ট) হিসেবে শিগগিরই নিয়োগ দিয়ে কোম্পানির প্রশাসনিক কার্যক্রম সুচারুরূপে পরিচালনা করার বিষয় নিশ্চিত করতে হবে।

এতে আরও বলা হয়েছে, আপনার (সুলতান-উল-আবেদীন মোল্লা) মাসিক সম্মানী সর্বমোট ৪ লাখ টাকা নির্ধারণ করা হলো। তবে উৎসব ভাতা (যদি থাকে) মোট সম্মানীর ৬০ শতাংশ প্রাপ্ত হবেন।

শিগগিরই সুপ্রতিষ্ঠিত কোনো দেশি বা বিদেশি অডিট ফার্ম দিয়ে কোম্পানির অডিট সম্পন্ন করতেও নির্দেশ দেয়া হয় চিঠিতে। পাশাপাশি যে কোনো সময় বীমা ব্যবসায় পরিচালনাকালে উদ্ভূত যে কোনো বিষয়ে কর্তৃপক্ষের নির্দেশনার জন্য আবেদন করতে বলা হয়েছে।

তার আগে ৭ ফেব্রুয়ারি এক সংবাদ সম্মেলন করে ডেল্টা লাইফের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়, আইডিআরএ চেয়ারম্যান ড. এম. মোশাররফ হোসেন তাদের কাছে ঘুষ দাবি করেছেন। সেই সঙ্গে আইডিআরএ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিদ্ধেষপূর্ণ আচারণেরও অভিযোগ করে প্রতিষ্ঠানটি।

সংবাদ সম্মেলনে ডেলটা লাইফ ইন্স্যুরেন্স প্রধান নির্বাহি কর্মকর্তা (সিইও) আদিবা রহমানের উপস্থিতিতে লিখিত বক্তব্যে প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক চৌধুরী কামরুল আহসান অভিযোগ করে বলেন, আইডিআরএ বর্তমান চেয়ারম্যান যিনি এক সময় ডেল্টা লাইফের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তা ছিলেন।

এজন্য উদ্দেশ্যমূলকভাবে ডেল্টা লাইফের ২০১৯ সালের একচ্যুারিয়াল ভ্যালুয়েশনের বেসিস অনুমোদন দেয়া হয়নি। মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তার নবায়ন অনুমোদন না দিয়ে এবং কোম্পানিকে নানা অজুহাতে অন্যায়ভাবে জরিমানা আরোপের হুমকি দিচ্ছেন আইডিআরএ চেয়ারম্যান। এছাড়া কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ বহিস্কার করে প্রশাসক নিয়োগেরও হুমকি দিচ্ছেন।

চাঁদা দাবির অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, বিভিন্ন বিষয় সমাধানের জন্য বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানের সঙ্গে আলোচনা করতে গেলে তিনি কোম্পানির কাছে প্রথমে ২ কোটি, পরবর্তীতে ১ কোটি ও সর্বশেষ ৫০ লাখ টাকা উৎকোচ দাবি করেন। এ সংক্রান্ত অডিও ক্লিপ ও ট্রান্সক্রিপটি দুর্নীতি দমন কমিশনে অভিযোগ আকারে দাখিল করা হয়েছে। পরবর্তীতে এ বিষয়ে হাইকোর্ট বিভাগ অধিকতর তদন্ত করার আদেশ দিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *