গমের রফতানি মূল্য বাড়ল রাশিয়া

প্রতিকূল আবহাওয়া কিছুটা স্বাভাবিক হয়ে আসায় গম উৎপাদনের প্রাক্কলন বাড়িয়েছে রুশ সরকার। একই সঙ্গে দেশটি থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে গমের রফতানি চাহিদা চাঙ্গা রয়েছে। এর প্রভাব পড়েছে রাশিয়ার কৃষিপণ্যের বাজারে।

সর্বশেষ সপ্তাহে দেশটির বাজারে গমের গড় রফতানি মূল্য আগের সপ্তাহের তুলনায় টনপ্রতি ৩ ডলার বেড়েছে। মস্কোভিত্তিক কৃষি পণ্যবিষয়ক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান আইকার সাপ্তাহিক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। খবর বিজনেস রেকর্ডার।

প্রতিষ্ঠানটির প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, কিছুদিন ধরে রুশ গমের রফতানি মূল্যে চাঙ্গাভাব বজায় রয়েছে। এ ধারাবাহিকতায় সর্বশেষ সপ্তাহে রাশিয়ার বাজারে ফ্রি অন বোর্ড (এফওবি) চুক্তিতে সাড়ে ১২ শতাংশ প্রোটিনযুক্ত প্রতি টন গমের গড় রফতানি মূল্য দাঁড়িয়েছে ২২৮ ডলারে, যা আগের সপ্তাহের তুলনায় টনপ্রতি ৩ ডলার বেশি। এর আগের সপ্তাহেও দেশটিতে এফওবি চুক্তিতে প্রতি টন গমের গড় রফতানি মূল্য ৩ ডলার বেড়ে ২২৫ ডলারে দাঁড়িয়েছিল।

এদিকে মস্কোভিত্তিক অন্য কৃষি পণ্যবিষয়ক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান সভইকন জানিয়েছে, সর্বশেষ সপ্তাহে দেশটিতে গমের সর্বোচ্চ রফতানি মূল্য আগের সপ্তাহের তুলনায় ২ ডলার বেড়ে টনপ্রতি ২২৯ ডলারে উঠেছিল। এ সময় রাশিয়ায় যবের গড় রফতানি মূল্য দাঁড়িয়েছে টনপ্রতি ২৩৭ ডলারে, যা আগের সপ্তাহের তুলনায় ৩ ডলার কম।

রুশ কৃষি মন্ত্রণালয়ের সাম্প্রতিক পূর্বাভাস অনুযায়ী, প্রতিকূল আবহাওয়া কেটে যাওয়ায় ২০১৮ সাল শেষে রাশিয়ায় সব মিলিয়ে সাত কোটি টন গম উৎপাদন হতে পারে, যা আগের প্রাক্কলনের তুলনায় ১০ লাখ টন বেশি। দেশটির আগের সরকারি পূর্বাভাসে চলতি বছর মোট ৬ কোটি ৯০ লাখ টন গম উৎপাদনের প্রাক্কলন করা হয়েছিল। এ তথ্য প্রকাশের সময়ে রাশিয়া থেকে গমের রফতানি বাজারও চাঙ্গা রয়েছে। অন্যতম শীর্ষ আমদানিকারক দেশ মিসরে গম চালান পাঠিয়েছেন রুশ রফতানিকারকরা। এসব কারণে সর্বশেষ সপ্তাহে দেশটিতে গমের রফতানি মূল্য টনে ৩ ডলার বেড়ে গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.