গমের দাম আড়াই মাসের সর্বনিম্নে

বিশ্বজুড়ে প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণের নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে ইউরোপের গমের বাজারে। সর্বশেষ কার্যদিবসে কৃষিপণ্যটির দামে বড় পতন দেখা দিয়েছে। এ সময় ভবিষ্যৎ সরবরাহ চুক্তিতে প্রতি টন গমের দাম কমে আড়াই মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থানে নেমে এসেছে। ভাইরাসের সংক্রমণ করে চাহিদা না বাড়লে আগামী দিনগুলোতেও ইউরোপের গমের বাজারে মন্দা ভাব বজায় থাকতে পারে বলে মনে করছেন খাতসংশ্লিষ্টরা। খবর বিজনেস রেকর্ডার ও এগ্রিমানি।

প্যারিসভিত্তিক ইউরোনেক্সট এক্সচেঞ্জে এদিন মে মাসে সরবরাহ চুক্তিতে প্রতি টন গম বিক্রি হয়েছে ১৮৪ দশমিক ২৫ ইউরো বা ২০০ ডলার ২৪ সেন্টে, যা আগের দিনের তুলনায় টনপ্রতি ২ দশমিক ৭৫ ইউরো কম। একদিনের ব্যবধানে কৃষিপণ্যটির দাম কমেছে ১ দশমিক ৫ শতাংশ। দিনের শুরুতে প্রতি টন গমের দাম ১৮৩ দশমিক ৫০ ইউরোয় নেমেছিল। গত বছরের ১২ ডিসেম্বরের পর এটাই কৃষিপণ্যটির সর্বনিম্ন দাম।

অন্যদিকে জার্মানির হামবুর্গে এপ্রিলে সরবরাহ চুক্তিতে ১২ শতাংশ প্রোটিন সমৃদ্ধ প্রতি টন গম প্যারিসের তুলনায় ৪ দশমিক ৫ ইউরো বাড়তি দামে বিক্রি হয়েছে।

স্থানীয় ট্রেডাররা জানান, চীনের পর ইউরোপেও নভেল করোনাভাইরাস মহামারী আকার ধারণ করেছে। এ পরিস্থিতি গমের চাহিদা সাময়িক কমিয়ে দিয়েছে। প্রভাব পড়েছে কৃষিপণ্যটির দামে। আগামীতে ভাইরাস সংক্রমণ দ্রুত কমে না এলে গমের চাহিদা কমতির দিকে থাকতে পারে। এতে ইউরোপের বাজারে দীর্ঘমেয়াদে কৃষিপণ্যটির দরপতন বজায় থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.