ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে ১০ লাখ টাকা পেলেন সেলিম

স্টাফ রিপোর্ট

নারায়ণগঞ্জের একটি পোশাক কারখানায় প্রায় এক যুগ ধরে কাজ করছেন সেলিম মিয়া। বাসায় ফ্রিজ দরকার ছিলো। টাকার অভাবে কেনা সম্ভব হয়নি। অল্প অল্প করে টাকা জমিয়ে ওয়ালটনের একটি ফ্রিজ কিনলেন তিনি। করোনা দুর্যোগের সময় সেই ফ্রিজটিই ভাগ্য বদলে দিলো তার। ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে পোশাককর্মী সেলিম মিয়া এখন মিলিয়নিয়ার, পেলেন ১০ লাখ টাকা।

উল্লেখ্য, ঈদুল আজহা উপলক্ষে চলছে ওয়ালটনের ‘মেগা ঈদ ফেস্টিভ্যাল’। প্রতিষ্ঠানটির ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-১১ এর আওতায় মেগা ঈদ ফেস্টিভ্যালে ওয়ালটন ফ্রিজ, টিভি, এসি, ওয়াশিং মেশিন, ফ্যান, গ্যাস স্টোভ ও রাইস কুকার ক্রেতাদের জন্য রয়েছে দেশের ইলেকট্রনিক্স বাজারের সবচেয়ে বড় অফার। এখন ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন করে মিলিয়নিয়ার হওয়ার সুযোগ রয়েছে। এছাড়াও পণ্যভেদে আছে ফ্রি ফ্রিজ, এসি, ওয়াশিং মেশিন, কোটি কোটি টাকার নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচারসহ অসংখ্য সুবিধা।

সোমবার (৭ জুন ২০২১) আড়াইহাজারের বান্টিবাজার মার্কেটের ওয়ালটন প্লাজায় আনুষ্ঠানিকভাবে সেলিম মিয়ার হাতে ১০ লাখ টাকার চেক হস্তান্তর করা হয়। সে সময় উপস্থিত ছিলেন ধুপতারা ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ইয়াসমিন বেগম, ওয়ালটন প্লাজা ট্রেডের ডিসিইও আবুল কালাম আজাদ, পিএসডি বিভাগের ডিভিশনাল হেড ইমরোজ হায়দার খান প্রমুখ।

ক্রেতা সেলিম মিয়া জানান, তার বাড়ি আড়াইহাজার উপজেলার গিরদা গ্রামে।  স্ত্রী ও এক মেয়ে নিয়ে তিন সদস্যের পরিবার তার।  এলাকার মানুষের কাছে ওয়ালটনের প্রশংসা শুনে টাকা জমিয়ে ফ্রিজটি কেনেন। এরপর ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন করলে ১০ লাখ টাকা পাওয়ার মেসেজ যায় তার মোবাইলে।  প্রথমে তিনি বিশ্বাসই করতে পারছিলেন না। মাত্র ১৮ হাজার ৫০০ টাকায় ওয়ালটন ফ্র্রিজ কিনে পোশাককর্মী সেলিম হয়ে গেলেন মিলিয়নিয়ার। ওই টাকায় একটি বাড়ি করবেন। কিছু মেয়ের জন্য রাখবেন। বাকি টাকায় একটি গরুর খামার করবেন।

ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ জানায়, বিক্রয়োত্তর সেবা অনলাইন অটোমেশনের আওতায় আনতে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন চালানো হচ্ছে। এর ফলে ওয়ারেন্টি কার্ড হারিয়ে গেলেও সহজেই দ্রুত বিক্রয়োত্তর সেবা পাচ্ছেন গ্রাহক। এ কার্যক্রমে ক্রেতাদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে উদ্বুদ্ধ করতে ক্যাম্পেইনের প্রতিটি সিজনেই আকর্ষণীয় উপহারসহ কোটি কোটি টাকার নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার দেওয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যেই দশটি সফল সিজন পেরিয়ে ঈদুল আযজা উপলক্ষে একাদশ সিজন চালু করেছে ওয়ালটন। এর আওতায় ‘মেগা ঈদ ফেস্টিভ্যাল’-এ নানান সুবিধা পাচ্ছেন ক্রেতারা।

বর্তমানে বাজারে রয়েছে ওয়ালটনের প্রায় দুইশ মডেলের রেফ্রিজারেটর, ফ্রিজার ও বেভারেজ কুলার। ঈদুল আজহা বা কোরবানির ঈদ উপলক্ষে সম্প্রতি ২৭টি নতুন মডেলের ফ্রিজ উন্মোচন করেছে ওয়ালটন। একইসঙ্গে ডিজাইন ও ফিচার আপডেট করা আরো অর্ধশতাধিক মডেলের ফ্রিজ আনুষ্ঠানিকভাবে বাজারে ছেড়েছে তারা।

এখন যেকোনো ব্র্যান্ডের পুরনো ফ্রিজ বদলে ওয়ালটনের নতুন ডিপ ফ্রিজ কেনার সুবিধা পাচ্ছেন গ্রাহক। ফ্রিজে ১ বছরের রিপ্লেসমেন্টসহ কম্প্রেসরে ১২ বছরের ওয়ারেন্টি দিচ্ছে ওয়ালটন। দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে আইএসও সনদপ্রাপ্ত সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের আওতায় সারাদেশে ওয়ালটনের রয়েছে ৭৬টি সার্ভিস সেন্টার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *