ঊর্ধ্বমুখী হয়ে উঠবে নিকেলের বাজার

স্টাফ রিপোর্টার

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক সম্প্রতি রেকর্ড মাত্রায় সুদহার বাড়িয়েছে। ফলে গত মাসে আন্তর্জাতিক বাজারে নিকেলের দাম ১০ শতাংশের বেশি কমেছে। এমনকি গত সপ্তাহেই ধাতুটির দাম ৬ শতাংশ কমে যায়। বিশ্লেষকরা বলছেন, চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) ধাতুটির বাজার আবার ঘুরে দাঁড়াতে পারে। খবর দ্য হিন্দু বিজনেস লাইন।

বিশ্বব্যাংক কমোডিটি আউটলুক শীর্ষক এক প্রতিবেদনে জানায়, চলতি বছর নিকেলের দাম গত বছরের তুলনায় ৫০ শতাংশেরও বেশি বাড়ার প্রাক্কলন করা হয়েছে। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শুরুর পর থেকেই ধাতুটির বাজার চাঙ্গা হয়ে ওঠে। এর আগে ধাতুটির গড় দাম ছিল ১৮ হাজার ৪৬৫ ডলার।

তথ্য বলছে, গত ৮ মার্চ অনিয়মের অভিযোগে নিকেলের বাণিজ্য বন্ধ ঘোষণা করে লন্ডন মেটাল এক্সচেঞ্জ (এলএমই)। কয়েক সপ্তাহ ধাতুটির বাণিজ্য বন্ধ রেখেছিল এলএমই। একদিকে যুদ্ধ, অন্যদিকে বাণিজ্য বন্ধের ঘোষণার প্রভাবে নিকেলের বাজারদর এক লাফে টনপ্রতি ১ লাখ ডলারে পৌঁছে যায়। এর বাজারে ভয়াবহ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়। তবে এক মাস ধরে নিকেলের বাজারে ব্যাপক দরপতন দেখা যায়।

ফিচ সলিউশনের বিশ্লেষণ বলছে, চীন সরকার ধাতুটির চাহিদা বাড়াতে প্রণোদনা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। ফলে চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে এটির দাম আবারো বাড়বে। এছাড়া রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সরবরাহ খাতে প্রতিবন্ধকতা অব্যাহত আছে। বিষয়টিও দাম বাড়াতে সহায়তা করবে।

তথ্য বলছে, বর্তমানে এলএমইতে তিন মাসের সরবরাহ চুক্তিতে প্রতি টন নিকেল বেচাকেনা হচ্ছে ২৪ হাজার ৯৫০ ডলারে। নগদ লেনদেনের ক্ষেত্রেও ধাতুটি বিক্রি হচ্ছে একই দামে। চলতি বছরের এখন পর্যন্ত নিকেলের গড় দাম দাঁড়িয়েছে টনপ্রতি ২৭ হাজার ৯১২ ডলারে। এক বছরের ব্যবধানে দাম বেড়েছে ৩৫ শতাংশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.