অর্থনীতি চাঙ্গায় শিল্পভিত্তিক কৌশলপত্র প্রণয়ন করবে আবুধাবি

স্টাফ রিপোর্টার

অর্থনীতিতে শিল্পভিত্তিক খাতের অবদান বৃদ্ধিতে নতুন একটি কৌশলপত্র প্রণয়ন করতে যাচ্ছে আবুধাবি। সার্বিকভাবে অর্থনীতি খাতে অবদান বাড়াতে এ পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। সম্প্রতি আবুধাবি অর্থনৈতিক উন্নয়ন বিভাগের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আল শরাফা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

দ্য ন্যাশনালকে দেয়া সাক্ষাত্কারে মোহাম্মদ আল শরাফা বলেন, নতুন কৌশলপত্র বলে দেবে যে, আবুধাবির অর্থনীতির একটি গুরুত্বপূর্ণ স্তম্ভ হলো শিল্প খাত। গত বছর আবুধাবির অর্থনীতিতে শিল্প খাতের মোট অবদান ছিল ৮ হাজার ৫০০ কোটি দিরহাম বা ২ হাজার ৩০০ কোটি ডলার।

নতুন কৌশলপত্রটি ওষুধ, যন্ত্রাংশ, ইলেকট্রনিকস, রাসায়নিক ও অ্যালুমিনিয়াম এবং পেট্রোকেমিক্যালসহ অর্থনীতির বিভিন্ন খাতে অবদান রাখবে। মোহাম্মদ আল শরাফা বলেন, এর সব প্রকল্পই শিল্প ও আধুনিক প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হবে।

২০৩১ সালের মধ্যে দেশের জিডিপিতে শিল্প খাতের অবদান ৩০০ বিলিয়ন দিরহামে নিয়ে যেতে গত বছর অপারেশন ৩০০ বিলিয়ন স্ট্র্যাটেজি ঘোষণা করে সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই)। ২০২১ সালে যেখানে দেশটির জিডিপিতে শিল্প খাতের অবদান ১৩৩ বিলিয়ন দিরহাম।

নভেল করোনাভাইরাসের প্রকোপ বাড়ায় নানা প্রতিকূলতার সম্মুখীন হয় আবুধাবির অর্থনীতি। এ সত্ত্বেও ইউএইর রাজধানীর অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অব্যাহত ছিল বলে জানান মোহাম্মদ আল শরাফা। গত বছরের তুলনায় দেশটির জিডিপি ২ শতাংশ বেড়েছে। এছাড়া জ্বালানি তেলবহির্ভূত খাতের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৪ শতাংশেরও বেশি ছিল।

এ বিষয়ে আবুধাবি অর্থনৈতিক উন্নয়ন বিভাগের চেয়ারম্যান জানান, কভিড সংকটের সময় অর্থনীতি কতটা বেশি সচল ছিল এটি তারই প্রমাণ। নিশ্চিতভাবেই আমরা এখন আরো উন্নতির আশা করছি। আগামী কয়েক বছরে জিডিপি আরো বাড়বে বলে প্রত্যাশা রয়েছে।

গত বছর আবুধাবির অর্থনীতি পুনরুদ্ধার জোরদার ছিল। মহামারীর অভিঘাত কাটিয়ে উঠতে নানা পদক্ষেপ নেয় ইউএই সরকার। ফলে প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যেও দেশটির অর্থনৈতিক কার্যক্রম উন্নত হয়। আগামী দুই বছর ইউএইর অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হতে পারে ৬ থেকে ৮ শতাংশ। এক্ষেত্রে জ্বালানি তেল খাতসহ সরকারি ব্যয়, আর্থিক পরিষেবা ও প্রত্যক্ষ বৈদেশিক বিনিয়োগের গুরুত্বপূর্ণ অবদান থাকবে বলে জানান মোহাম্মদ আল শরাফা।

গত এক বছরে জ্বালানি তেলের দাম ৫৬ শতাংশেরও বেশি বেড়েছে। চলতি বছরের মার্চে ব্যারেলপ্রতি জ্বালানি তেলের দাম হয় প্রায় ১৪০ ডলার। মূলত রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণেই বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম অব্যাহতভাবে ঊর্ধ্বমুখী ছিল। বর্তমানে দাম কমলেও তা ব্যারেলপ্রতি ১১৫ ডলারের আশপাশে রয়েছে।

এদিকে এসঅ্যান্ডপির পূর্বাভাস, চলতি বছর আবুধাবির অর্থনীতি ৫ শতাংশেরও বেশি সম্প্রসারিত হতে পারে। ২০২৩ সালে তা কভিডপূর্ব স্তরে পৌঁছবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.