যাত্রা শুরু ‘ফেব্রিক লাগবে’ অ্যাপের; তৈরি পোশাকের ফেব্রিক মিলবে অনলাইনে

স্টাফ রিপোর্টার

এখন থেকে টেক্সটাইল ও রেডিমেট গার্মেন্টস কারখানায় ব্যবহৃত ফেব্রিকসহ যাবতীয় পণ্য পাওয়া যাবে অনলাইনে। এসব পণ্য ক্রয়-বিক্রয়, ট্রেডিং এবং সাপ্লাইএর  বাংলাদেশের প্রথম ও একমাত্র ডিজিটাল মার্কেট প্লেস ‘ফেব্রিক লাগবে’ মোবাইল অ্যাপের যাত্রা শুরু হলো। মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি, ২০২২) রাজধানীর ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরামের (ইআরএফ) অডিটরিয়ামে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এর উদ্বোধন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ফেব্রিক লাগবে লিমিটেডের ফাউন্ডার ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর ইঞ্জিনিয়ার মো. নাজমুল ইসলাম, প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান রাজিয়া সুলতানা, আইটি আপারেশন হেড আবু বকর সিদ্দিক, ফাইন্যান্স এন্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশন এডভাইজার মো. জাকির হোসাইন।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এই প্লাটফর্মটি মূলত টেক্সটাইল ও রেডিমেড গার্মেন্টস ইন্ডাস্ট্রিজ এই দুটি খাতের সমন্বয়ে বি-টু-বি ধরনের। যেখানে বিক্রেতা তার পণ্য (রেডিমেড গার্মেন্টস, কাপড়, সুভা, তুলা, ট্রিমস অ্যান্ড এক্সেমরিজ, সাইজিং, ডাইং প্রসেসিং, কেমিক্যাল, মেশিনারীজ) সরসারি বায়ারের কাছে, কোন ঝামেলা-মধ্যসত্ত্বভূগী ছাড়া, নগদমুল্যে বিক্রয় করতে পারবেন। অপর দিকে ক্রেতা তার পদন্দমত পণ্য উৎপাদনকারীর কাছ থেকে (কাপড়, সুতা, এবং অ্যাপ সংশ্লিস্ট অন্যান্য পন্য) মধ্যসত্ত্বভূগী ছাড়া, সুলভ মূল্যে সঠিক মাপে, গুনগত মান নিশ্চিত করে সরাসরি ক্রয় করতে পারবেন।
এই অ্যাপে উভয় পক্ষের জন্য বিড এর অপশন আছে। এর আওতায় বিক্রেতা ভার পণ্যটির সম্পূর্ণ বর্ণনা দিয়ে ফেব্রিক লাগবে মোবাইল অ্যাপ ওওয়েবসাইটের মাধ্যমে এন্ট্রি করে বিড করার জন্য প্ল্যাটফর্মে লাইভ করতে পারবেন। অপর দিকে ক্রেতাগণ তাদের পদন্দমত পণ্যের গুনাগুনের উল্লেখে, রিভার্স বিড করতে পারবেন।সংবাদ সম্মেলনে ফেব্রিক লাগবে ম্যানেজিং ডিরেক্টর ইঞ্জিনিয়ার মো. নাজমুল ইসলাম বলেন , গত ১০ বছর ধরে, টেক্সটাইল এবং রেডিমেড গার্মেন্টস ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে কাজ করছি কাজ করতে গিয়ে দেখেছি ‘সুতা ক্রয় করা থেকে শুরু করে সাইজিং করে, মেশিনের সাহায্যে উইভিং করে, কাপড় বানিয়ে ডাইং ফিনিশিং করে, গার্মেন্টসে ডেলিভারী করতে গিয়ে, যে পরিমাণ বাঁধা, সমস্যা, পণ্যের উৎসের খোঁজ করা, যোগযোগ করা, পণ্যের অর্ডার নেওয়া, পণ্য উৎপাদন করা এবং বিক্রি করতে গিয়ে বহ প্রতিকূলতার সম্মুখীন হতে হয়। আনেক পরিশ্রম ও বায়বহল হওয়ার পরেও এ ব্যবসায়ে কাঙ্খিত সফলতা পাওয়া যায়না, লাভের মুখ দেখা যায়না। অনেক সময়, ব্যবসায়িক দুর্যোগের কারনে সারা বছরের লাভ এক মাসেই অন্তর্হিত হয়ে যায়।
তিনি বলেন, গত প্রায় ৩ বছরের করোনা কালীন সমযে স্থানীয় অনেক ক্রেতার কাছে সরবরাহকৃত পণ্যের মূল্য বাকী থাকা, ভালো ক্রেতা না পাওয়ায়, মূলধন হারিয়ে শত শত কারখানা বন্ধ হযেছে কিন্ত এর কার্যকারী কোন সমাধান জানা কিংবা পাওয়া যায়নি। এ প্রক্রিয়া বছরের পর বছর ধরে চলে আসছে আমাদের পোশাক সেক্টরে। বিশেষ করে ফাইনাল এক্সপোটার-রেডিমেটগামেন্টস ইন্ডাস্ট্রির ব্যাক ওয়ার্ড লিংকে যারা কাজ করছে যেমন স্পিনিং, সাইজিং, উইভিং, ডাইং প্রিন্টিং ও ফিনিশিং ইত্যাদি , এদেরকে লিড টাইম এর মধ্যে সংশ্রিষ্ট পণ্য ডেলিভারী দেওয়া, পেমেন্ট পাওয়া, পেেণ্যর উচিতমূল্য পাওয়া এবং রেডিমেড গার্মেন্টস সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ও সময় মত সঠিকভাবে, সঠিক পণ্যের উৎসের সন্ধান পেতে এবং ক্রয় করতে গিয়ে আনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।এসব সমস্যাগুলোকে চিহ্নিত করে খুব দ্রুততম সময়ে পণ্যের খোঁজ করা এবং বিক্রেতা হিসেবে বায়ারকে সহজে পাওয়া, বায়ারের কাছে উৎপাদিত পণ্যের বিক্রয় প্রস্তাব করা, যাচাই-বাদাই করে সঠিক পদ্ধায়, সঠিক পণ্য বায়ারের কাছে পৌছানোর জন্যই আমাদের উদ্যোগ।
মূলতঃ এই প্লাটফর্মটি  টেক্সটাইল ও রেডিমেড গার্মেন্টস ইন্ডাস্ট্রিজ এই দু’টি খাতের সমন্বয়ে ই২ই ধরনের, যেখানে বিক্রেতা তার পণ্য (রেডিমেড গার্মেন্টস, কাপড়, সুতা, তুলা, ট্রিমস এন্ড এক্সেসরিজ, সাইজিং, ডাইং প্রসেসিং, কেমিক্যাল, মেশিনারীজ) সরসারি বায়ারের কাছে, কোন ঝামেলা ছাড়া, হয়রানি ছাড়া, মধ্যসত্বভোগী ছাড়া,  ঝুঁকি ছাড়া, নগদমুল্যে (বাকী বিহীন), বিক্রয় করতে পারবেন। অপর দিকে ক্রেতা তার পছন্দমত পণ্য উৎপাদনকারীর কাছ থেকে (কাপড়, সুতা, এবং সংশ্লিস্ট অন্যান্য পন্য) মধ্যসত্বভোগী ছাড়া, সুলভ মুল্যে, সঠিক মাপে, সঠিক সময়ে, সঠিক পরিমাণে এবং সঠিক গুনগত মান নিশ্চিত করে  সরাসরি ক্রয় করতে পারবেন।এসময় জানানো হয়, তিন বছরের গবেষণায়, যার আওতায় টানা ৬ মাস প্রতিদিন ১৪ ঘন্টা করে পরিশ্রম এবং ১৮ জনের এক কর্মী বাহিনীর ১৪ মাসের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল ফেব্রিক লাগবে লিমিটেড এর উদ্ভাবনীমূলক ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম মোবাইল অ্যাপ ফ্রেব্রিক লাগবে এবং ওযেবসাইট www.fabriclagbe.com

Leave a Reply

Your email address will not be published.