ভোজ্যতেলের ব্যবসা থেকে সরে আসছে রহিমা ফুড

0
2
রহিমা ফুড
রহিমা ফুড

দীর্ঘদিন ধরে উৎপাদন বন্ধ থাকা লোকসানি প্রতিষ্ঠান রহিমা ফুড করপোরেশন লিমিটেড ব্যবসা পরিবর্তন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ভোজ্যতেলের বদলে এবার নারকেল তেল উৎপাদন ও বাজারজাত করার উদ্যোগ নিয়েছে শেয়ারবাজারের আলোচিত কোম্পানি রহিমা ফুড। আর ব্যবসা পরিবর্তনের আনুষঙ্গিক ব্যয়নির্বাহে কারখানার ফাঁকা জমিও বিক্রি করবে তারা। গতকাল অনুষ্ঠিত পর্ষদ সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

রহিমা ফুডের পর্ষদ সভার সিদ্ধান্ত অনুসারে, কোম্পানিটি বিদ্যমান ভোজ্যতেলের উৎপাদন লাইন বিলুপ্ত করে এর জায়গায় নারকেল তেল উৎপাদন লাইন স্থাপন করবে। এজন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ২৯ কোটি টাকা। তাছাড়া নতুন উৎপাদন লাইন স্থাপনে অর্থসংস্থানের জন্য কারখানার চার বিঘা অব্যবহূত ফাঁকা জমি ২০ কোটি টাকায় বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

আর পর্ষদ সভায় নেয়া সিদ্ধান্তগুলো কার্যকর করতে আগামী ২৭ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত বিশেষ সাধারণ সভায় (ইজিএম) শেয়ারহোল্ডারদের অনুমোদন নেয়া হবে। এজন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ৭ ডিসেম্বর।

পাম অয়েল
পাম অয়েল

এদিকে, চলতি ২০১৭-১৮ হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) রহিমা ফুডের কর-পরবর্তী লোকসান হয়েছে ২৮ লাখ টাকা, যা এর আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৩০ লাখ টাকা। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান (ইপিএস) হয়েছে ১৪ পয়সা, যা আগে ছিল ১৫ পয়সা। ৩০ সেপ্টেম্বর কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়ায় ২ টাকা ৬৮ পয়সায়।

৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৬-১৭ হিসাব বছরে রহিমা ফুড শেয়ারহোল্ডারদের জন্য কোনো লভ্যাংশ দেয়নি। আলোচ্য সময়ে ইপিএস হয়েছে ১৮ পয়সা (লোকসান)। লভ্যাংশ ও অন্যান্য এজেন্ডা অনুমোদনের জন্য ২৭ ডিসেম্বর বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আহ্বান করা হয়েছে। রেকর্ড ডেট ৭ ডিসেম্বর।

বিভিন্ন ধরনের ভোজ্যতেল আমদানি ও প্রক্রিয়াজাত করার উদ্দেশ্যে ১৯৯০ সালে যাত্রা করে রহিমা ফুড করপোরেশন লিমিটেড। ১৯৯৭ সালে শেয়ারবাজারে আসে কোম্পানিটি। এর অনুমোদিত মূলধন ২৫ কোটি ও পরিশোধিত মূলধন ২০ কোটি টাকা। কোম্পানিটির পুঞ্জীভূত লোকসান ১৫ কোটি ৪৪ লাখ টাকা। এ কোম্পানির মোট শেয়ার সংখ্যা ২ কোটি ২০০টি। এর মধ্যে ৯ দশমিক ৩ শতাংশ এর উদ্যোক্তা পরিচালকদের কাছে, প্রতিষ্ঠান ২৮ দশমিক ৫৫, বিদেশী বিনিয়োগকারী ৪ দশমিক ৯৯ ও বাকি ৫৭ দশমিক ১৬ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে।

উল্লেখ্য, পুঞ্জীভূত লোকসান সত্ত্বেও সিটি গ্রুপের কাছে উদ্যোক্তাদের শেয়ার হস্তান্তরের ইস্যুকে কেন্দ্র করে গত বছরের শেষ প্রান্তিক থেকে স্টক এক্সচেঞ্জে ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে রহিমা ফুডের শেয়ারদর।

উত্তর দিন