ইস্পাত উৎপাদন বাড়ছে চীনে

0
42
ইস্পাত
ইস্পাত

ইস্পাত উৎপাদন ও ব্যবহারকারী দেশগুলোর তালিকায় চীনের অবস্থান বিশ্বে প্রথম। চলতি বছরের শুরু থেকে দেশটির ইস্পাত খাতে সরকারি অভিযান চলমান রয়েছে। মূলত পরিবেশদূষণ রোধে নিম্নমানের ইস্পাত উৎপাদনকারী কারখানাগুলোয় অভিযান পরিচালনা করছে চীন সরকার। অভিযানের মুখে অনেক কারখানা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দেশটিতে ইস্পাত উৎপাদন কমার আশঙ্কা দেখছিলেন বিশ্লেষকরা। তবে সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়েছে চায়না মেটালরজিকাল ইন্ডাস্ট্রি প্ল্যানিং অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউট (এমপিআই)। প্রতিষ্ঠানটির সাম্প্রতিক প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, উৎপাদন কমার বদলে চলতি বছর দেশটিতে অপরিশোধিত ইস্পাত উৎপাদন আগের বছরের তুলনায় ৩ শতাংশ বাড়বে। আগামী বছর নাগাদ পণ্যটির উৎপাদন প্রবৃদ্ধি ৭ শতাংশে গিয়ে ঠেকবে। খবর রয়টার্স।

এমপিআইয়ের পূর্বাভাস অনুযায়ী, ২০১৭ সাল শেষে চীনে মোট ৮৩ কোটি ২০ লাখ টন অপরিশোধিত ইস্পাত উৎপাদন হতে পারে, যা আগের বছরের তুলনায় ৩ শতাংশ বেশি। ২০১৬ সালে চীনে সব মিলিয়ে ৮০ কোটি ৮০ লাখ টন অপরিশোধিত ইস্পাত উৎপাদন হয়েছিল। সেই হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে চীনে অপরিশোধিত ইস্পাত উৎপাদন ২ কোটি ৪০ লাখ টন বাড়তে পারে। এদিকে আগামী বছর নাগাদ চীনে অপরিশোধিত ইস্পাত উৎপাদন আরো বেড়ে ৮৩ কোটি ৮০ লাখ টনে দাঁড়াতে পারে। সেই হিসাবে ২০১৮ সালে দেশটিতে পণ্যটির উৎপাদন চলতি বছরের তুলনায় ৫০ লাখ টন বাড়তে পারে।

প্রতিষ্ঠানটির এক নোটে বলা হয়, নিম্নমানের ইস্পাত তৈরির কারখানাগুলোর বিরুদ্ধে বছরজুড়ে অভিযানের পর পণ্যটির সামগ্রিক উৎপাদন ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছিল। তবে এ আশঙ্কা কেটে গেছে। মূলত বৈধ কারখানাগুলোয় বাড়তি উৎপাদনের জের ধরে চলতি ও আগামী বছর চীনে অপরিশোধিত ইস্পাত উৎপাদনে প্রবৃদ্ধি বজায় থাকবে বলে মনে হচ্ছে। পণ্যটির এ উৎপাদন প্রবৃদ্ধি চীনের কাঙ্ক্ষিত অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্য অর্জনে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে।

একই সঙ্গে চলতি বছর চীনে ইস্পাতের ব্যবহার আগের বছরের তুলনায় ৩ শতাংশ বেড়ে ৭২ কোটি ২০ লাখ টনে দাঁড়াবে। আর আগামী বছর নাগাদ পণ্যটির অভ্যন্তরীণ ব্যবহার আরো বেড়ে ৭২ কোটি ৬০ লাখ টন হতে পারে বলে মনে করছে এমপিআই।

যারা অনলাইন থেকে টাকা উপার্জন করতে চান তাদের জন্য এই ভিডিও

উত্তর দিন