অর্থনীতির পূর্ণ সক্ষমতার প্রকাশ ঘটছে না

0
2
এমসিসিআই
এমসিসিআই

বাংলাদেশের অর্থনীতির অগ্রগতি ভালো। কিন্তু অবকাঠামোগত বাধা, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি ঘাটতির কারণে প্রকৃত সম্ভাবনার চেয়ে অগ্রগতির হার বর্তমানে কম। গতকাল ‘বাংলাদেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি’ শীর্ষক চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকের (জুলাই- সেপ্টেম্বর) পর্যালোচনায় এমন মত জানিয়েছে মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এমসিসিআই)।

অগ্রগতির সার্বিক পরিস্থিতি বিশ্লেষণে এমসিসিআই মনে করে, মাথাপিছু আয়, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ, আমদানি-রফতানি ও সরাসরি বিদেশী বিনিয়োগসহ সামষ্টিক অর্থনীতির সূচকে ইতিবাচক প্রবণতা রয়েছে। এর প্রভাবে চলতি অর্থবছরের রাজস্ব আহরণের পরিমাণ গত অর্থবছরের চেয়ে বেশি হতে পারে।

সরকারের সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা অনুযায়ী, জিডিপিতে ৭ দশমিক ৪ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জনে করণীয় প্রসঙ্গে এমসিসিআইয়ের পর্যালোচনায় বলা হয়েছে, এর জন্য রফতানি প্রবৃদ্ধি বাড়াতে হবে, আরো বেশি পরিমাণে বিনিয়োগ করতে হবে, সড়ক, রেল, বন্দরসহ সামগ্রিক অবকাঠামো উন্নয়ন করতে হবে ও বিদ্যুৎ-গ্যাসের উৎপাদন বাড়াতে হবে।

কৃষি খাতে রেকর্ড পরিমাণ প্রবৃদ্ধিকে ইতিবাচক উল্লেখ করে এমসিসিআই শিল্প খাত প্রসঙ্গে বলেছে, গত অর্থবছরের ১১ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ থেকে কমে শিল্প খাতের প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১০ দশমিক ৫০ শতাংশ। উৎপাদন খাতে প্রবৃদ্ধি ১১ দশমিক ৬৯ থেকে কমে হয়েছে ১০ দশমিক ৯৬ শতাংশ।

উৎপাদনের পাশাপাশি বিদ্যুৎ বিভ্রাটের সমস্যাও আগের তুলনায় বেড়েছে বলে জানিয়েছে এমসিসিআই।

সংগঠনটি জানিয়েছে, ২০১৬ সালের আগস্ট থেকে ২০১৭ সালের আগস্ট পর্যন্ত বেসরকারি খাতে ১৭ দশমিক ৮৪ শতাংশ ঋণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে।

এমসিসিআইয়ের বিশ্লেষণে বলা হয়েছে, শিল্প-নিরাপত্তার মান উন্নয়ন, শান্তিপূর্ণ রাজনৈতিক পরিস্থিতির কারণে চলতি অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে রফতানি প্রবৃদ্ধি অব্যাহত ছিল। আগামীতে এ আয় আরো বাড়বে বলে সংগঠনটি আশা করছে। তবে এক্ষেত্রে শুধু পোশাক শিল্পের ওপর রফতানি খাতের নির্ভরতা কাটিয়ে ওঠার তাগিদ দিয়েছে এমসিসিআই।

এমসিসিআই তাদের পর্যালোচনায় গত প্রান্তিকে দেশের কৃষি, শিল্প, নির্মাণ, বিদ্যুৎ, সেবা, পুঁজিবাজার, সরকারি অর্থায়ন, আমদানি-রফতানি, রেমিট্যান্স, বিদেশী অনুদান ও বিনিয়োগ, ব্যালান্স অব পেমেন্ট, মুদ্রা বিনিময় হার ও রিজার্ভ, মূল্যস্ফীতিসহ বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করেছে।

২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হতে গেলে উচ্চহারে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি প্রয়োজন। এছাড়া রফতানি বৃদ্ধিসহ বিপুল পরিমাণ বিনিয়োগ ও অবকাঠামো উন্নয়ন প্রয়োজন বলে উল্লেখ করা হয়েছে এমসিসিআইয়ের পর্যালোচনায়। সংগঠনটির মতে, প্রবৃদ্ধিকে গতিশীল করতে সড়ক, রেল, বন্দর, গ্যাস ও বিদ্যুতের কোনো বিকল্প নেই। এছাড়া দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তোলার প্রয়োজনীয়তার ওপরও গুরুত্ব দিয়েছে এমসিসিআই।

উত্তর দিন